ব্লগিং কী?

ব্লগিং কী?

একটি ব্লগ  আসলে এমন একটি ওয়েবসাইট যা নিয়মিত আপডেট করা হয়।

ব্লগিং সম্পর্কিত সমস্ত প্রয়োজনীয় সংজ্ঞা

এখন আসুন ব্লগিং সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংজ্ঞা সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাক।

ব্লগ সংজ্ঞা

ব্লগ একএকটি অনলাইন জার্নাল / ডায়েরি যা এটি অন্য ব্যবহারকারীদের দ্বারা পড়ার জন্য ইন্টারনেটে উপলব্ধ।

ব্লগার সংজ্ঞা

ব্লগার আসলে সেই ব্যক্তি যিনি সেই ব্লগের মালিক। এই একই ব্যক্তি যিনি সময়ে সময়ে নতুন ব্লগ পোস্ট, নতুন তথ্য, কেস স্টাডি, এবং তার মতামত ইত্যাদি সেই ব্লগে লিখেন।

ব্লগ পোস্ট সংজ্ঞা

ব্লগ পোস্ট আসলে ব্লগের ব্লগ দ্বারা লিখিত কোনও কন্টেন্টকে বলা হয়। উদাহরণস্বরূপ, এই কন্টেন্টটি আপনি এখন পড়ছেন, এটি এই ব্লগে আমার লেখা একটি “ব্লগ পোস্ট”।

ব্লগিং সংজ্ঞা

ব্লগিং এর অর্থ হ’ল একজন ব্লগার তার ব্লগে নিয়মিত যে সমস্ত কাজ করে, যেমন ভাল তথ্যমূলক ব্লগ পোস্ট করা, , এসইও করা, লিঙ্ক করা,  ইত্যাদি।

এই সমস্ত কাজের সাথে সংযুক্ত করে একে ব্লগিং বলা হয়। ব্লগিং করতে গেলে আপনার অবশ্যই সমস্ত প্রয়োজনীয় বৈশিষ্ট্য থাকতে হবে। যদি তা না হয় তবে আপনি অবশ্যই এগুলি অন্যের কাছ থেকে শিখতে পারেন।

ব্লগিং কত  ধরণের আছে ?

ব্লগিং সম্পর্কে আপনার অবশ্যই কিছুটা ধারণা থাকতে হবে। যদি ব্লগিং মানে শুধু জ্ঞান শেয়ার করে নেওয়া হয়, তবে এই Professional ব্লগিংটি কী? আমি আপনাকে আগে যেমন বলেছিলাম, আমরা যদি Professiona lভাবে কিছু করি তবে এর অর্থ হল আমরা এটি থেকে কিছুটা আয়ের জন্য বলি। এইভাবে আমরা ব্লগিংকে দুটি বিভাগে বিভক্ত করতে পারি।

 

  •  ব্যক্তিগত ব্লগিং
  •  Professional ব্লগিং

 

ব্যক্তিগত ব্লগিং : ব্যক্তিগত বা শখের ব্লগাররা হ’ল যাদের কুনো কিছু শেয়ার করার বা কিছু গল্প বলার অভিজ্ঞতা আছে। এটি নিজের সম্পর্কে, বা অন্য কারও সম্পর্কে হতে পারে। তাদের ব্লগিং থেকে অর্থোপার্জন করতে হবে না।

তারা কেবল শখ হিসাবে ব্লগিং করে। একই সঙ্গে, তাদের একটি নির্দিষ্ট কৌশল বা পরিকল্পনা নেই। তারা কোনও উদ্দেশ্য ছাড়াই শেয়ার করে দেয়। টাইম পাস হিসাবে তারা কেবল ব্লগিং করে।

Professional ব্লগিং : Professional ব্লগাররা হলেন যারা ব্লগিংয়ের মাধ্যমে এত বেশি অর্থ উপার্জন করেন যে তারা নিজের বাড়ি চালাতে পারেন। এটি তাদের জন্য এক ধরণের ব্যবসা। এখন আপনি অবশ্যই ভাবছেন যে এই Professional ব্লগাররা কীভাবে উপার্জন করে।

সুতরাং আমি আপনাকে বলি যে আপনি ব্লগ বা ওয়েবসাইটগুলিতে যে বিজ্ঞাপনগুলি দেখেন, তারা এগুলি থেকে অর্থ উপার্জন করে। যাইহোক, এই জাতীয় অনেকগুলি উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে এই ব্লগাররা তাদের ব্লগ থেকে প্রচুর উপার্জন অর্জন করে।

উদাহরণ স্বরূপ : –

 

  1. বিজ্ঞাপন
  2. কন্টেন্ট সাবস্ক্রিপশন
  3. স্পন্সর লিঙ্ক
  4. ইবুকস
  5. অনলাইন কোর্স ইত্যাদি

 

এগুলি এমন কিছু ব্যবস্থা ছিল যার মাধ্যমে তারা নিজেরাই উপার্জন করে।

Professional ব্লগিং কী?

আপনি নিশ্চয়ই এতটা বুঝতে পেরেছেন যে একজন ব্লগার কে । কেউ কি পরিকল্পনা ছাড়াই ব্যবসা করতে পারবেন? না, এটি সম্ভব নয়। Professional ব্লগারদের একটি ভাল এবং উন্নত পরিকল্পনা এবং কৌশল রয়েছে যার মাধ্যমে তারা তাদের ব্লগ থেকে অর্থ উপার্জন করে।

একইভাবে, একজন Professional ব্লগার ব্যক্তিগত ব্লগার থেকে আলাদা। আপনার যদি লেখার সুযোগ থাকে তবে আপনি সহজেই ব্লগিং লাইনে প্রবেশ করতে পারেন। তবে আপনি যদি ব্লগিংয়ের মাধ্যমে ভাল উপার্জন করতে চান তবে তার জন্য আপনার আরও ভাল পরিকল্পনা, উত্সর্গ, কঠোর পরিশ্রম এবং ধৈর্য দরকার।

ব্লগিং এই নয় জে  আপনি আজ একটি ব্লগ তৈরি করেছেন এবং আগামীকাল থেকে আপনার উপার্জন শুরু হয়ে যাবে। তার জন্য আপনার কঠোর পরিশ্রম এবং সবচেয়ে ধৈর্য প্রয়োজন।

ব্লগিং এর সুবিধা কি

যে কেউ ব্লগিংয়ের জন্য তার চাকরি ছেড়ে দেয় বা ব্লগিংকে তার কাজ হিসাবে বিবেচনা করে, সে হয় ব্লগিংয়ের মাধ্যমে ভাল উপার্জন করছে, বা এটি করতে চায়।

আপনি যদি কোথাও কাজ করে থাকেন তবে আপনাকে আপনার সিনিয়রদের সারাক্ষণ শুনতে হবে। আপনাকে সময়মতো অফিসে পৌঁছতে হবে, তবে ব্লগিংয়ের ক্ষেত্রে এটি হয় না। আপনি যে কোনও জায়গা এবং যে কোনও সময় থেকে ব্লগিং করতে পারেন। আপনি নিজের মালিক হতে পারেন। সুতরাং এই দ্রুত বর্ধমান প্রযুক্তির বিশ্বে ব্লগিংয়ের চেয়ে ভাল আর কোনও কাজ নেই।

Professional ব্লগার হওয়ার জন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টিপস

এখানে আমি আপনাদের সাথে এমন কয়েকটি টিপস শেয়ার করতে চলেছি যা সাধারণ ব্লগারকে Professional ব্লগার হওয়ার জন্য খুব সহায়ক হতে চলেছে।

সবার থেকে আলাদা হও।

Uniqueness থাকা ব্লগিংয়ের একটি খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এটি ব্লগিংয়ের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি আপনার ব্লগটি অনন্য না হয় তবে লোকেরা এটি পছন্দ করবে না কারণ এমন অনেকগুলি ব্লগ রয়েছে যা অনুরূপ কন্টেন্ট লিখিত এবং লোকেরা এই জাতীয় অনুরূপ নিবন্ধগুলি বেশি পছন্দ করে না।

এবং লোকেরা যা পছন্দ করে না, তারা এটি পড়বে না, সুতরাং আপনি যদি আরও ভাল Professional ব্লগার হতে চান তবে আপনার ব্লগ এবং কন্টেন্ট সবার চাইতে আলাদা হওয়া উচিত।

আপনাকে প্যাশনেট এবং ধৈর্যশীল হতে হবে

যদি আপনার লক্ষ্যটি কেবল ব্লগিং থেকে অর্থ উপার্জন করা হয় তবে আপনার ব্লগিং করা উচিত নয়। ব্লগিং এ  সাফল্য অর্জনের জন্য কোনও শর্টকাট নেই।

আপনি যদি একজন সফল Professional ব্লগার হতে চান তবে আপনাকে এটির জন্য অবিরাম চেষ্টা করতে হবে, কঠোর পরিশ্রম করতে হবে, নিজেকে অনুপ্রাণিত রাখতে হবে এবং আপনি যে কাজ করছেন তা সম্পর্কে উত্সাহী হতে হবে।

অন্যদের ব্লগ পড়ুন

এই কাজটি ব্লগিংয়ের জন্য খুব জরুরী। এখানে আপনাকে প্রথমে আপনার প্রতিযোগীদের ব্লগ পড়তে হবে, তারা কী লিখছে এবং কীভাবে লিখবে তা বুঝতে হবে।

এটি করে আপনি তাদের কৌশলগুলি বুঝতে পারবেন । Professional ব্লগিং করার জন্য  পড়া এবং লেখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি ভালো লিখতে জানেন তা হলে আপনার লেখা কন্টেন্ট মানুষ বেশি পছন্দ করবে। যদি আপনি নিজে লিখতে না চান তা হলে কন্টেন্ট রাইটার hire করতে পারেন।

কোনও নতুন পোস্ট লেখার আগে এটি সম্পর্কে ভাবেন। ডেটা সংগ্রহ করুন , এর জন্য আপনি প্রচুর গবেষণা করতে পারেন। এবং তারপরে আপনার ধারণাগুলি কুনো নোটে বা খাতা কলমে লিখতে পারেন অতবা মোবাইলের মদ্যে note আছে সেখানে আইডিয়া লীকে রাখতে পারেন।

সঠিক Niche বাছাই করতে হবে।

এটি হলো ব্লগিংয়ের মূল চাবি। আপনি যেই বিষয় (Niche) বেছে নিবেন, সেই বিষয়ে ভালোভাবে কাজ করতে হবে। বিষয়ের বাইরে লিখতে গেলেই অসুবিদা শুরু হয়ে যাবে, তাই কুন বিষয় (Niche) বাছাই করার আগে 100 বার চিন্তা ভাবনা করে বাছাই করুন। যাতে আগে গিয়ে কুন অসুবিদা না হয়। কিন্ত Multi Niche ও কাজ করতে পারবেন , সেটার জন্য আপনার ব্লগিং এর ভালো অবিজ্ঞতা হতে হবে,তাই আমি এক নিউ ব্লগারকে বলব এক বিষয় নিয়ে কাজ করতে।

ধারাবাহিকতা (Consistency) বজায় রাখতে হবে।

ব্লগাররা প্রায এইটা ভুলে যায় তা হ’ল Consistency হওয়া। এই ধারাবাহিকতাটি একটি সাধারণ ব্লগারকে Professional ব্লগার বানিয়ে দেয়। একজন নতুন ব্লগার 10-15 পোস্ট করার পর যদি ট্রাফিক আসেনা তাহলে ও ব্লগিং ছেড়ে দেয়। তারপর কুনসময় পোস্ট করে কুনসময় করেনা। এইটা করতে করতে শেষে বলে ব্লগিং কুন কাজের না এইটা থেকে ইনকাম হয়না।

যদি কোনও ব্লগার নিয়মিতভাবে তার ব্লগে ভাল পোস্ট লিখতে থাকে এবং প্রতিদিন না হলে একটা পোস্ট করে সে সফল হবেই। এবং যদি seo এর সাথে ভালো পোস্ট করতে পারে তাহলে কম সময়ের মদ্যে ট্রাফিক ও পেয়ে যাবে।

যাঁদের দৈনিক পোস্ট লেখার ক্ষেত্রে সমস্যা হয় তারা সপ্তাহে 2 থেকে 3 টি পোষ্ট লিখতে পারেন, এতে তাদের কষ্ট কম হবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অকটিভ থাকুন।

শুধুমাত্র শখের উদ্দেশ্যে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করবেন না। ভাবুন যে এটি এমন একটি প্ল্যাটফর্ম যেখানে আপনি নিজের দক্ষতা অন্যকে সহায়তা করতে ব্যবহার করতে পারেন।

সোশ্যাল মিডিয়া এমন একটি প্লাটফর্ম যেখানে আপনি লোককে মূল্য দিতে পারেন। যেহেতু বেশিরবাগ  লোকেরা সোশ্যাল মিডিয়াতে অনলাইনে আসে তাই আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়াতে একটিভ থাকা খুবই প্রযুজন।

আপনার ব্লগিং এর  লক্ষ্য সেট করুন।

কোনও ব্লগার যদি Professional ব্লগার হতে চায় তবে তার সামনে তাকে ব্লগিং লক্ষ্যগুলি সেট করতে হবে। এটি তাকে জানতে দেবে যে সে তার লক্ষ্যের কতটা কাছাকাছি।

বছরের শুরুতে নিজের জন্য লক্ষ্য নির্ধারণ করুন, যাতে আপনি সারা বছর কী করতে হবে তা সর্বদা মনে রাখবেন। এটির সাহায্যে আপনি আরও মনোনিবেশ করতে সক্ষম হবেন এবং আপনি নিজেকে উত্সাহিত করতে সক্ষম হবেন।

ব্লগ আপডেট করা

আজকের বিশ্ব বদলাতে চলেছে। প্রতিদিন এখানে কিছু পরিবর্তন হয় তাই ব্লগগুলির সাথেও একই ঘটনা ঘটে। userদের সর্বদা নতুন কিছু প্রয়োজন।

এই Professional ব্লগারদের জীবন যতটা কথা বলা হয় তত আরামদায়ক নয়। এই আরামদায়ক জীবনের পিছনে অনেকগুলি দক্ষতা রয়েছে, এটি অনেক ঘন্টা কঠোর পরিশ্রমের পরে, সারা রাত জেগে থাকা ইত্যাদি পরে সম্ভব হয়েছে।

আস্তে আস্তে আরও বেশি লোক অনলাইনে আসছেন, এমন পরিস্থিতিতে দিন দিন নতুন পোস্ট এর চাহিদা বাড়ছে। অতএব, আপনি যদি Professional ব্লগার হতে চান তবে নিজের কঠোর পরিশ্রম এবং প্রদত্ত কৌশলগুলি দিয়ে আপনিও এই অবস্থানটি অর্জন করতে পারেন।

Leave a Comment